আপনার শিশুর চোখের সুরক্ষার জন্য আপনি কি যথেষ্ঠ সচেতন?

আজকের ডিজিটালি চালিত বিশ্বে, বেশিরভাগ শিশুরা যেখানেই যায় সেখানে ডিজিটাল স্ক্রিনের সংস্পর্শে আসে। স্মার্টফোন, ভিডিও গেম, কম্পিউটার এবং অন্যান্য টাচস্ক্রিন ডিভাইসগুলি নীল আলো (Blue Light) নির্গত করে। শুধু মাত্র এই ক্ষতিকারক ব্লু লাইট থেকে চোখকে সুরক্ষা রাখতে চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞরা অভিভাবকদের তাদের সন্তানদের কম্পিউটার চশমা দেওয়ার পরামর্শ দেন। কেননা এই ব্লু লাইট থেকে ভবিষ্যকে চোখের নানান ধরণের সমস্যা হতে পারে এবং ইদানিং এটা মহামারি আকারে ধারণ করেছে। কম্পিউটার চশমা পাউয়ার এবং নন পাওয়ার দুই ধরনেরই হতে পারে।

আজকাল দেড় দুইবছর থেকে শুরু করে, সব বয়সের বাচ্চারাই ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করে। অনেকেই সেটা করে বিনোদনের জন্য অনেকেই শিক্ষার জন্য। সেটা শিক্ষা, শখ বা শুধুমাত্র বিনোদনের জন্যই হোক, ডিজিটাল স্ক্রিনের দীর্ঘায়িত এক্সপোজার শিশুদের মধ্যে চোখের জটিলতা এবং ভবিষ্যতে ক্ষীন দৃষ্টির সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে। আসুন জেনে নেই ব্লু লাইট শিশুদের চোখের কি ধরণের ক্ষতি করছে।

Digital Eye Strain (DES)

একটি বিখ্যাত ম্যাগাজিন, সায়েন্স ডেইলির মতে, চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞরা দেখেছেন যে শিশুদের অতিরিক্ত ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহারের ফলে চোখের স্ট্রেনে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বেড়েছে। ডিজিটাল স্ক্রিনে দীর্ঘ সময় ব্যয় করার সাথে যারা যুক্ত, তাদের চোখে নিম্নলিখিত সমস্যাগুলো পরিলক্ষিত হয়।

  1. শুষ্ক চোখ
  2. ঝাপসা দৃষ্টি
  3. মাথাব্যথা
  4. চোখের চাপ।

• ডিজিটাল আই স্ট্রেন ছাড়াও, চোখের অন্যান্য অবস্থার ক্ষেত্রে ব্লু লাইট কিভাবে প্রভাব ফেলেছে তার একটি উদাহরণ হলো ২০০০ সালের পর থেকে সারা বিশ্বে শিশুদের মায়োপিয়া বৃদ্ধির হার শতকরা ৪২% বেড়েছে। মায়োপিয়া হলো শিশুদের দুরদৃষ্টির সমস্যা।

• এশিয়ার প্রায় 90% প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ এবং কিশোর-কিশোরীদের মায়োপিয়া আছে।
বিজ্ঞানীরা এখনও এই মায়োপিয়া বৃদ্ধির সঠিক কারণ আবিষ্কার করতে পারেননি। কিন্তু এটা নিশ্চিত হয়েছেন যে মায়োপিয়া বৃদ্ধির একটি সঠিক এবং অন্যতম কারণ হলো, ডিজিটাল স্ক্রিন, যেমন কম্পিউটার, মোবাইল, স্মার্ট টিভি ইত্যাদি। ভবিষ্যতে কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে এই রোগ মহামারি আকারে ধারণ করবে। শুধুমাত্র ডিজিটাল স্ক্রিনে-টাইম সীমিত করার মাধ্যমে আপনার সন্তানের চোখ নিরাপদ এবং সুস্থ থাকতে পারে, অথবা এই ডিভাইসগুলো ব্যবহার করার সময় আপনার সন্তানকে ব্লু লাইট ফিল্টারিং চশমা ব্যবহার করতে দিন।

কিভাবে কম্পিউটার চশমা কাজ করে এবং আপনার সন্তানের দৃষ্টি রক্ষা করতে সাহায্য করে?

কম্পিউটার চশমা চক্ষু বিজ্ঞানিদের একটি যুগান্তকারি আবিস্কার। এই চশমাটি ডিজিটাল স্ক্রিনের ক্ষতিকারক ব্লু লাইট এবং ইউভি লাইট প্রতিহত করার ক্ষমতা অনযায়ী তৈরি করা । এই ধরণের চশমার লেন্সে বিশেষ এক ধরণে ব্লু লাইট ফিল্টারিং কোটিং বসানো হয় যা প্রিভেনশন হিসাবে কাজ করে। তবে কি ধরণের কম্পিউটার চশমা আপনি ব্যবহার করবেন সেটা আপনার ডক্তারের কাছ থেকে পরামর্শ করে ব্যবহার করা উচিত। কারণ বাজারে কম্পিউটার লেন্সের নামে অনেক ধরণের আজে বাজে লেন্স পাওয়া যায় যেগুলো চোখের জন্য ক্ষতিকর। সব সময় অথেনটিক এবং ব্রান্ডের কম্পিউটার লেন্স ব্যবহার করা উচিত। কম্পিউটার লেন্স পাওয়ার প্রেসক্রিপশনের জন্যও প্রযোজ্য।
কম্পিউটার চশমা অন্যান্য বিল্টইন ডিজিটাল প্রটেকশনের চেয়ে প্রায় ৮0% বেশি কার্যকর। এবং আপনার সন্তানের জন্য অবশ্যই একটি একটি ভাল কমিপিউটা চশমা দিন।

কম্পিউটার চশমার অতিরিক্ত বৈশিষ্ট্য যা শিশুদের বিদ্যমান চোখের অবস্থা থেকে রক্ষা করতেও ব্যবহার করা যেতে পারে:

• কম্পিউটার লেন্সের অ্যান্টি-রিফ্লেক্টিভ আবরণ ডিজিটাল ডিভাইস যেমন কম্পিউটার, ল্যাপটপ, স্মার্টফোন এবং অন্যান্য ডিজিটাল স্ক্রিন দ্বারা নির্গত নীল আলোকে ৯৫% পর্যন্ত করে। ফটোক্রোমিক বা ট্রানজিশন লেন্স যা চোখকে সুরক্ষিত রাখতে সূর্যালোকে অন্ধকার হয়ে যায়। কিন্তু কম্পিউটার লেন্স সুর্যালোকে অন্ধকার হয়না।

শিশুদের কি ডিজিটাল স্ক্রিন থেকে অতিরিক্ত সুরক্ষা প্রয়োজন?

নীল আলোর দীর্ঘায়িত এবং বর্ধিত এক্সপোজার প্রাপ্তবয়স্কদের এবং শিশুদের ধরে রাখে এবং ঘুমের ব্যাধি সৃষ্টি করে। একাধিক গবেষণা প্রমানিত হয়েছে যে এটি নিজেই নীল আলো নয়, এটি একটি মারাত্মক সমস্যা। সূর্য এবং ডিজিটাল স্ক্রিন থেকে নির্গত নীল আলো ঘুমের হরমোন মেলাটোনিন নিঃসরণ কমিয়ে দেয়। যার ফলে শিশুদের এবং প্রাপ্ত বয়স্কদের ঘুমের ব্যঘাত ঘটে।

সুতরাং, দেড়ি না করে আপনার সন্তানকে জিরো পাওয়ার অথবার পাওয়ারসহ কম্পিউটার চশমা প্রদান করুন। কম্পিউটার চশমা সব বয়সি বাচ্চাদের জন্য উপযুক্ত। যদি আপনার শিশু ইতিমধ্যে শুধুমাত্র সাধারণ লেন্স দিয়ে প্রেসক্রিপশন চশমা ব্যবহার করে, তবে তাকে সেটা পরিবর্তন করে কম্পিউটার চশমা দিন যা ব্যবহার করা দীর্ঘমেয়াদে ব্যবহারে আপনার সন্তানের চোখ রক্ষা করতে সাহায্য করবে।

কম্পিউটার চশমা ছাড়াও একজন অভিভাবক হিসেবে, আপনার সন্তানের ডিজিটাল স্ক্রিন টাইম নিয়ন্ত্রণ করা আপনার কর্তব্য। বাচ্চাদের শুধুমাত্র একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করার অনুমতি দিন। বাচ্চাদের মাঠের খেলাধুলা করতে উৎসাহিত করুন যা তাদের ডিভাইসের প্রতি আসক্তি কমাবে।

কিভাবে বাচ্চাদের ডিজিটাল স্ক্রিন থেকে দূরে রাখা যায়?

বর্ধিত ডিজিটালাইজেশনের সাথে, ডিজিটাল স্ক্রিন এবং চোখের সম্পর্ক উতপ্রোতভাবে জড়িত। এখান থেকে পালানোর কোন পথ নেই। ডিজিটাল স্ক্রিনের অতিরিক্ত ব্যবহারের ক্ষতিকারক দিক সম্পর্কে বাচ্চাদের কাউন্সিলিং করা প্রয়োজন। এর থেকে

সবশেষে, মনে রাখবেন যে কম্পিউটার চশমা চোখকে ভালো রাখার একটি অন্যতম সহায়ক জিনিস। নাইন অপটিকে, আমরা আপনাকে ডিজিটাল স্ক্রিন থেকে চোখের স্ট্রেন প্রতিরোধে সহায়তা করার জন্য অ্যাড-অন হিসাবে উন্নত প্রযুক্তির লেন্সের সাথে ট্রেন্ডি এবং ফ্যাশনেবল চশমা সরবরাহ করি। আপনার সন্তানের জন্য নিখুঁত কম্পিউটার চশমা খুঁজে পেতে আমাদের অনলাইনে ভিজিট করুন অথবা আমাদের স্টোর ভিজিট করুন।

https://nineoptic.com/product-category/first-free/

Author: Khurshid Zaman, Founder, Nineoptic.com

blue light blocking glass, Anti blue rays computer Glasses, Gaming Glasses for Eye Protection, Video Gaming Anti UV Glare, Blue Light Lenses online, Blue light blocking glasses, Best Blue Light Blocking Glasses, Blue light glasses, Blue Light Glasses bd, gaming glasses for child, computer glasses for children

0/5 (0 Reviews)
Spread the love

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    ×





    X